প্রথম রোবট ব্যবহার করা হয় শিল্প-প্রয়োগ(industrial application) থেকে । মানুষের শক্তির লিমিটেশন থেকেই চিন্তা শুরু । তাই প্রথম দিকে রোবট ব্যবহার করা হতো গবেষণার কাজে ।রোবট ব্যবহার হতে থাকে শিল্প ক্ষেএে । অনেক ভারী জিনিস স্থানান্তর , কর্তন এর কাজে ব্যবহার শুরুশুরুর দিকে এমন অনেক কাজ ছিল যেগুলো বিজ্ঞানীদের করতে হয়ত কয়েক বছর লেগে যেত । রোবট এই কাজগুলো কয়েক মিনিট অথবা ঘন্টার মাঝেই করে ফেলতে পারে । তাছাড়া অনেক গবেষণা প্রতিষ্ঠান যেমন-নাসা,স্পারসো তাদের মহাকাশ গবেষণার জন্যে রোবটের ব্যবহার শুরু করে ।মহাকাশে গবেষণার কাজে মানুষ প্রেরণ করা অনেক ঝুঁকি পূর্ণ আর সময় সাপেক্ষ । তাই মানুষের জায়গায় প্রেরণ করা হয় অনেক ছোট,কয়েক গ্রাম ওজনের রোবট । সেগুলো মাটি আবহাওয়ার তথ্য পৃথিবীতে প্রেরণ করত । এভাবে শুরু দিকে গবেষণার ক্ষেএে ব্যবহৃত হলেও দিনে দিনে এর পরাধি বাড়তে থাকে

গবেষণার সাফল্যের পর  হলো । যেমন কঠিন ধাতুগুলো গলানোর কাজে ব্যবহৃত হয় রোবট । অতি উচ্চ তাপে রোবটটি নির্ভুলতা এবং দ্রুততার সাথে কাজ করে যাচ্ছে যেখানে মানুষ কাজ করা তো দূরের থাক যাওয়ার কথাও চিন্তা করতে পারে না । উন্নত দেশগুলোতে অনেক ইন্ডাস্ট্রি আছে যে গুলো একেবারে মানুষবিহীন । আমরা নিজের অজান্তে এমন অনেক কিছু পণ্য ব্যবহার কর যেগুলো হয়তো মানুষের স্পর্শ ছাড়াই তৈরি হয়েছে ।

এবার আসা যাক শিক্ষা ক্ষেএ রোবটের ব্যবহার । রোবট দুই ধরনের হতে পারে :

1.মেকানিক্যাল

2.ভা্র্চয়াল

এই দুই ধরনের রোবটের প্রধান উপাদান দুটি হচ্ছে যন্ত্র (মেশিন) এবং একে কাজে লাগানোর নির্দিষ্ট নির্দেশনা (প্রোগ্রাম) । আমরা অনেকেই হয়তো কৃএিম বৃদ্ধি বা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (Artificial Intelligence-AI)এর সাথে পরিচিত ।এই AI কে অন্য মাএা দিয়েছে রোবটিক্স শিল্প । একই সাথে প্রোগ্রামিং এবং মেকানিক্যাল কাজের দরুন সমন্বয় ঘটেছে এতে । শিক্ষা ক্ষেএে এখন শিক্ষকের বিকল্প হচ্ছে মনব আকৃতির/